পেসমেকার প্রতিস্থাপন

এই পোস্টে পড়ুন: English العربية 'তে

পেসমেকার ইম্প্লান্টেশন (পেসমেকার প্রতিস্থাপন)

পেসমেকার হলো একটি ক্ষুদ্র যন্ত্র বা যন্ত্রাংশ যা বুকের চামড়ার নিচে প্রতিস্থাপন করা হয়। যন্ত্রটি হৃদস্পন্দন নিরীক্ষণ করে এবং হৃদপিন্ডের ছন্দকে নিয়ন্ত্রণ করে।

একটি পেসমেকার এর দুটি অংশ রয়েছে :

১. পালস (স্পন্দন উৎপন্নকারী) জেনারেটর – এটি একটি ক্ষুদ্র ধাতব পাত্র, ব্যাটারি এবং বৈদ্যুতিক সার্কিটকে ধারণ করে যা হৃদপিন্ডের মধ্যে প্রেরিত বৈদ্যুতিন পালস বা স্পন্দন কে নিয়ন্ত্রিত করে।

২. ইলেকট্রোডস অথবা লেডস- এগুলি হৃদপিন্ডের চেম্বারে স্থাপন করা ইনসুলেটেড (মে যে বস্তু তাপ,বিদ্যুৎ অথবা শব্দের লিকেজ প্রতিরোধ করে তার থেকে পৃথক রাখা) তারগুলি যা হৃদস্পন্দনের হার কে সামঞ্জস্য করে রাখার জন্য বৈদ্যুতিক স্পন্দন সরবরাহ করে।

ভিন্ন ভিন্ন পেসমেকারগুলি

তিন ধরনের পেসমেকার উপলব্ধ :

১. একক প্রকোষ্ঠযুক্ত পেসমেকার – এগুলি জেনারেটর থেকে হৃদপিন্ডের ডান ভেন্ট্রিকলে(নিলয়) বৈদ্যুতিন প্রবণতা বহন করে।

২. দ্বি-প্রকোষ্ঠযুক্ত পেসমেকার – এগুলি জেনারেটর থেকে ডান আট্রিয়াম(অলিন্দ) এবং ডান ভেন্ট্রিকল(নিলয়) উভয় পক্ষেই বৈদ্যুতিন প্রবণতা বহন করে।

৩. বাইভেন্ট্রিকুলার পেসমেকার – এই পেসমেকারটি ডান এবং বাম ভেন্ট্রিকল(নিলয়) উভয়েরই অনুকরণ করে, যারমারফত হৃদপিণ্ড আরো দক্ষতার সাথে সংকোচন-প্রসারণ করে। এটি হৃদরোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের চিকিৎসার একটি বিকল্প।

পেসমেকারের জন্য লক্ষণগুলি

পেসমেকার নিম্নলিখিত চিকিৎসার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়

  • কার্ডিওমিওপ্যাথি
  • হার্ট ফেলিওর
  • ধীর হৃদস্পন্দন যা ব্র্যাডারিথিমিয়া নামেও পরিচিত
  • সিনকোপ

পেসমেকার ইম্প্লান্টেশন এর পূর্বে করা টেস্টগুলি

নিম্নলিখিত গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা-নিরীক্ষা গুলি পেসমেকার প্রতিস্থাপন এর পূর্বে আবশ্যক –

  • ইলেক্ট্রোকার্ডিওগ্রাম : এই পরীক্ষায় হৃদপিন্ডের বৈদ্যুতিক উদ্দীপনা নথিভুক্ত করার জন্য ইলেকট্রোডগুলি বুকে বা অঙ্গপ্রত্যঙ্গের উপর স্থাপন করা হয়।

 

  • হোল্টার মনিটরিং : এই পরীক্ষাটি অ্যাম্বুলেটরি মনিটর হিসেবেও পরিচিত যার মধ্যে হৃদপিন্ডের স্পন্দন পুরোপুরি ২৪ ঘন্টা ধরে রেকর্ড করা থাকে।

 

  • ইকোকার্ডিওগ্রাম : এটি দেহের অভ্যন্তরে প্রবেশ না করা একটি পরীক্ষা যেখানে শব্দ তরঙ্গ ডাক্তারদের কে কোনরকম অস্ত্রোপচার ছাড়াই হৃদপিণ্ডকে দেখতে সাহায্য করে।

 

  • স্ট্রেস টেস্ট : এই পরীক্ষায় ট্রেডমিলের উপর দিয়ে হাঁটার আগে এবং তাৎক্ষণিকভাবে হাটার পর একটি ইলেক্ট্রোকার্ডিওগ্রাম নেওয়া হয়।

পেসমেকার প্রতিস্থাপন পদ্ধতি

প্রক্রিয়ার পূর্বে

  • যে দিনাঙ্কে এই প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হবে তার পূর্বের রাত্রি থেকে পরের দিন সন্ধ্যা পর্যন্ত কোনো কিছুই খাওয়া বা পান করা চলবে না।
  • প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হওয়ার ১ থেকে ৫ দিন পূর্বে কিছু কিছু নির্দেশিত ওষুধ যেমন ডায়াবেটিস এর জন্য, নেওয়া বন্ধ করতে হবে।

 

প্রক্রিয়াটি চলাকালীন

দুটি উপায়ে পেসমেকার প্রতিস্থাপন করা হয়

  • এন্ডোকার্ডিয়াল পদ্ধতি – পদ্ধতিটি সাধারণত পেসমেকার প্রতিস্থাপন এর জন্য ব্যবহার করা হয়। এই পদ্ধতিটির সময় সাধারণত অ্যনাস্থেসিয়া প্রয়োগ করা হয় অস্ত্রোপচার করার সংলগ্ন জায়গাটিকে অসাড় করার জন্য। অস্ত্রোপচার চলাকালীন একটি সীসা প্রথমে শিরার মধ্যে প্রবেশ করানো হয় তারপর সেটাকে এক্সরে মেশিন মারফত হৃৎপিণ্ড পর্যন্ত পৌঁছে দেওয়া হয়। সীসাটির একটি প্রান্ত হৃৎপিন্ডের পেশীগুলির সাথে যুক্ত থাকে,সীসাটির অন্য প্রান্ত পালস (স্পন্দন) জেনারেটর এর সাথে যুক্ত করা থাকে, যা বুকের উপরের দিকে চামড়ার নিচে তৈরি করা পকেটে রাখা হয়।
  • এপিকার্ডিয়াল পদ্ধতি – সাধারনত এই পদ্ধতিটি শিশুদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। এই পদ্ধতিতে সাধারণত অ্যানাস্থেসিয়া প্রয়োগ করা হয়। এক্ষেত্রেও, সীসাটির একটি প্রান্ত হৃৎপিন্ডের পেশীগুলির সাথে যুক্ত থাকে,সীসাটির অন্য প্রান্ত পালস (স্পন্দন) জেনারেটর এর সাথে যুক্ত করা থাকে, যা পেটের চামড়ার নিচে তৈরি করা পকেটে রাখা হয়।

 

প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হওয়ার পর

  • পেসমেকার প্রতিস্থাপন করার পর হাসপাতালে রোগীকে একদিন থাকতে হবে
  • হাসপাতাল ছাড়বার পূর্বে, রোগীর প্রয়োজনীয়তা অনুসারে প্রতিস্থাপন করা পেসমেকারটির প্রোগ্রামিং করা হয়, যার ফলে নির্দিষ্ট স্পন্দন গতি স্থির করা হয়।
  • প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হওয়ার পর, প্রায় এক মাস যাবৎ জোরালো অনুশীলন বা কোন ভারী জিনিস উত্তোলন করা এড়িয়ে চলা উচিৎ।

বিশেষ সতর্কীকরণ সমূহ

  • সেলফোন যখন চালু করা থাকে তখন পেসমেকার প্রতিস্থাপন এর জায়গাটির উপর সরাসরিভাবে সেলফোনটিকে রাখা থেকে বিরত থাকুন।
  • মেটাল ডিটেকশান সিস্টেম এর ঝুঁকি থেকে বিরত থাকুন।
  • যদি কোন ডাক্তার কোন চিকিৎসা পদ্ধতি বিবেচনা করেন সেখানে ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক এনার্জি যেমন ম্যাগনেটিক রেজোনেন্স ইমেজিং, ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য থেরাপিউটিক রেডিয়েশন চিকিৎসা পদ্ধতির মত কোন গভীর চিকিৎসা প্রক্রিয়া জড়িত থাকে, তবে সেই ডাক্তারবাবুকে পেসমেকার প্রতিস্থাপন এর বিষয়টি সম্পর্কে জ্ঞাত করুন।
  • ঝালাই করার মেশিন, হাইভোল্টেজ ট্রান্সফর্মার অথবা মোটর জেনারেটর সিস্টেম থেকে কমপক্ষে দু-ফুট দূরে দাঁড়ান।

অধিকতর জিজ্ঞাসিত প্রশ্নগুলি

১. পেসমেকার সার্জারির থেকে রিকভারির/পুনরুদ্ধারের সময়সীমা কত?

পেসমেকার সার্জারি থেকে রিকভারির সময়সীমা কমপক্ষে তিন থেকে চার সপ্তাহ।

২. সেলফোন কি পেসমেকারের কার্যপ্রণালীতে বাধা দান করে?

মোবাইল ফোন ব্যবহার করা সুরক্ষিত, তবে এই বিষয়টি নিশ্চিত করুন যে সেলফোনটি পেসমেকার থেকে কমপক্ষে 6 ইঞ্চি দূরে রাখা থাকবে।

৩. একটি পেসমেকার এর ব্যাটারি কতক্ষণ চলতে পারে?

বেশিরভাগ পেসমেকার এর ব্যাটারি কমপক্ষে ছয় থেকে দশ বছর ধরে চলতে পারে

৪. ফলোআপ অ্যাপোয়েন্টমেন্ট একজন রোগীর কতবার প্রয়োজন হতে পারে?

আপনার পেসমেকারের ধরন-ধারণ এবং এটি কতটা উপযুক্তভাবে কাজ করতে পারে তার উপর নির্ভর করে প্রতি তিন থেকে বারো মাসে ফলোআপ অ্যাপোয়েন্টমেন্টগুলি নির্দিষ্ট করা যেতে পারে।

সহায়তা প্রয়োজন?

যোগাযোগ করুন

ধন্যবাদ!

যোগাযোগ করার জন্য ধন্যবাদ! আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনার সাথে যোগাযোগ করব।

দ্রুত উত্তরের জন্য, আপনি ওয়েবসাইটের নীচে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট বোতামটি ব্যবহার করে আমাদের সাথে চ্যাট করতে পারেন।

টেলিগ্রামে যোগাযোগ করুন