মুখের ক্যান্সার প্রাথমিক পর্যায়ে দেখতে কেমন হয়?

What do the early stages of mouth cancer look like

মুখের ক্যান্সার বিশ্বের ষষ্ঠ সাধারণ ক্যান্সার। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বয়স্ক এবং কম বয়স্কদের মধ্যে দেখা যায়। সাধারণত, মুখের আস্তরণে টিউমার বিকাশ হলে মুখের ক্যান্সার হয়। এটি জিহ্বার পৃষ্ঠের উপরে, গালের ভিতরে, মুখের পিছনে টনসিল বা মুখের উপরের অংশে, ঠোঁট বা মাড়ির ছাদে থাকতে পারে। তবে মুখের ক্যান্সারের প্রাথমিক পর্যায়ের লক্ষণগুলি সম্পর্কে আপনার সচেতন হওয়া উচিত যাতে কোনও অস্বাভাবিক কিছু লক্ষ্য করা যায় তবে আপনি আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

মুখের ক্যান্সার কীভাবে নির্ণয় করা হয়?

আপনার মুখের কোনও লাম্প বা অনিয়মিত টিস্যু পরীক্ষা করার জন্য চিকিৎসক ওরাল (মৌখিক) ক্যান্সারের স্ক্রিনিং পরীক্ষা করবেন। সন্দেহজনক কোনো অঞ্চলের অবস্থা নির্ধারণের জন্য একটি বায়োপসি করা হয়। যদিও বিভিন্ন ধরণের বায়োপসি রয়েছে তবে আপনার চিকিৎসক কোনটি সবচেয়ে ভাল তা নির্ধারণ করতে পারেন।

কিছু ঝামেলা : মুখের পৃষ্ঠটি স্কোয়ামাস কোষ দ্বারা আবৃত থাকে যেখানে সাধারণত মুখের ক্যান্সার শুরু হয়। আপনার জিহ্বা, মাড়ি, টনসিল বা আপনার মুখে সাদা বা লাল প্যাচ স্কোয়ামাস সেল/ কোষ কার্সিনোমার (ক্যান্সারের) একটি সতর্কতা চিহ্ন হতে পারে।

সাদা এবং লাল প্যাচ: আপনার মুখের লাল এবং সাদা প্যাচগুলির ফলে অস্বাভাবিক কোষের বৃদ্ধি হতে পারে যা ক্যান্সারে পরিণত হতে পারে। প্যাচগুলি যদি দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে থাকে তবে আপনার ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত। এই মুখের অস্বাভাবিকতাগুলি মুখের ক্যান্সারের প্রাথমিক লক্ষণ কারণ এগুলি ব্যথা সৃষ্টি করে না।

লাল প্যাচগুলি: আপনার মুখের লাল প্যাচগুলি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সূক্ষ্ম হয় তাই আপনার মুখের রঙিন দাগগুলি কখনও উপেক্ষা করবেন না। যদি আপনি উজ্জ্বল লাল দাগগুলি লক্ষ্য করেন তবে আপনার ডাক্তার এই কোষগুলির একটি বায়োপসি করার পরামর্শ দেবেন।

সাদা প্যাচ: আপনার মুখের ভিতরে একটি সাদা প্যাচকে লিউকোপ্লাসিয়া বলে। এই প্যাচগুলি কোষের বৃদ্ধি বৃদ্ধির কারণে ঘটতে পারে যা ভাঙ্গা দাঁত, রুক্ষ দাঁত, আপনার গাল বা ঠোঁটের ভিতরে চিবানো, কার্সিনোজেনিক পদার্থের সংস্পর্শ ইত্যাদির ফলে ঘটে।

কোনও ধরণের সাদা বা লাল প্যাচ সিগন্যাল যে টিস্যু (কোষ) অস্বাভাবিক এবং এটি মারাত্মক হয়ে উঠতে পারে।

আপনার জিহ্বায় ঘা: লাল প্যাচটি প্রায়শই জিভের নীচে মুখের মেঝেতে বা দাঁতের পিছনে আপনার মাড়িতে দেখা যায়। অস্বাভাবিকতার কোনও লক্ষণগুলির জন্য আপনাকে প্রতি মাসে সাবধানে আপনার মুখটি পরীক্ষা করতে হবে।

ক্যানকার সোর (কাঁচা ঘা): যদিও ক্যানকার ঘা ব্যথা সৃষ্টি করে তবে সেগুলি মারাত্মক নয়। একটি ক্যানকার ঘা মুখের অভ্যন্তরে আলসারের মতো দেখায় যা প্রায়শই স্টিন্গ এবং টিংগল পোড়াতে সাহায্য করে। এটি সাধারণত দুই সপ্তাহের মধ্যে নিরাময় হয় তবে এটি যদি দীর্ঘায়িত হয় তবে আপনার একটি পেশাদার মূল্যায়ন প্রয়োজন।

চিকিৎসা

মুখের ক্যান্সারের প্রধান চিকিৎসার বিকল্পগুলি হল:

  • সার্জারি – এটি কিছু সাধারণ টিস্যু বা কোষের পাশাপাশি ক্যান্সারজনিত কোষগুলির অস্ত্রোপচার অপসারণের সাথে জড়িত।

 

  • রেডিওথেরাপি – উচ্চ-শক্তির এক্স-রে ব্যবহার করা হয় ক্যান্সারজনিত কোষগুলি মারতে।

 

  • কেমোথেরাপি – শক্তিশালী ওষুধ দিয়ে ক্যান্সার কোষগুলি মেরে ফেলা হয়।

 

মুখের ক্যান্সারের চিকিৎসা কেবল ক্যান্সার নিরাময় করতে পারে না তবে শ্বাস নেওয়া, কথা বলা এবং খাওয়ার মতো মুখের গুরুত্বপূর্ণ কার্যকারিতাও উন্নত করে।

প্রাথমিক পর্যায়ে সনাক্তকরণ এত গুরুত্বপূর্ণ কেন?

মুখের ক্যান্সারের প্রাথমিক রোগ নির্ণয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ক্যান্সার অন্যান্য অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়লে, এটি আলাদা করা এবং চিকিৎসা করা আরও কঠিন হয়ে পড়ে। বিপরীতে, ক্যান্সার আশেপাশের টিস্যুতে ছড়িয়ে না পড়লে বেঁচে থাকার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

মুখের ক্যান্সার প্রাথমিক পর্যায়ে ধরা পড়লে প্রায় ৯০ শতাংশ কেস সার্জারি করে নিরাময় করা যায়। অস্ত্রোপচারের পাশাপাশি রেডিওথেরাপি এবং কেমোথেরাপির ফলে নিরাময়ের হার অনেক উন্নত হয়েছে।

কখন ডাক্তার দেখাবেন?

মুখের ক্যান্সারের প্রাথমিক সতর্কতার লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে মুখের ঘা, সাদা বা লাল প্যাচ এবং কোমলতা বা ব্যথা। যে কেউ এই লক্ষণগুলি অনুভব করে তাদের চিকিৎসকের সাথে দেখা করা উচিত। প্রাথমিক রোগ নির্ণয়ের অর্থ সফল চিকিৎসার উচ্চতর সম্ভাবনা রয়েছে। যদি আপনি এমন কোনও সাইন এবং সিম্পটমস্ (লক্ষণ) লক্ষ্য করেন যা আপনাকে বিরক্ত করে এবং তা দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে থাকে তবে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

নিবন্ধটি পছন্দ হয়েছে? বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন!

টেলিগ্রামে যোগাযোগ করুন