ব্রেন টিউমারের চিকিৎসা

এই পোস্টে পড়ুন: English العربية 'তে

ব্রেন টিউমারের চিকিৎসা

ব্রেন টিউমারের জন্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রণালী সাধারণত টিউমারটির আকার, অবস্থান, প্রকার ও বর্তমান অবস্থার ওপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করা হয়।

এছাড়াও রোগীর শারীরিক অবস্থা এবং পছন্দের চিকিৎসা পদ্ধতির ওপরও সমপরিমাণ গুরুত্ব দেওয়া হয়। বিনাইন বা বিহীন টিউমারের ক্ষেত্রে প্রধানত সার্জারি বা অপারেশনের মাধ্যমে টিউমার বাদ দেবার প্রণালীই ব্রেন টিউমারের চিকিৎসায় ডাক্তারদের প্রাথমিক পরামর্শ হিসেবে বিবেচিত হয়। কিন্তু ম্যালিগন্যান্ট বা ক্যান্সার আক্রান্ত টিউমারের ক্ষেত্রে সার্জারি ছাড়াও কেমো, রেডিয়েশন থেরাপি এবং অন্যান্য প্রণালীর (ইন্টারভেনশন) মাধ্যমেও এই চিকিৎসা হয়ে থাকে।

ব্রেন টিউমার অনেক সময় ব্রেন ক্যান্সার নামেও পরিচিত হয়। নিম্নলিখিত পদ্ধতিগুলি হল ব্রেন টিউমার চিকিৎসার সর্বাধিক প্ৰচলিত পদ্ধতি:

সার্জারি

ব্রেন টিউমারের চিকিৎসার জন্য চিকিৎসকেরা সর্বপ্রথম টিউমারটি অপারেশন করে বাদ দেবার পরামর্শই দিয়ে থাকেন।

ছোট আকারের টিউমার, যেগুলি কম জটিল অংশে অবস্থান করে, সেগুলি অপারেশন করা তুলনামূলক ভাবে সহজ। কিন্তু যদি টিউমারটি আকারে বড় হয়, বা মস্তিষ্কের কোনো জটিল স্থানে থেকে থাকে, তবে তা অপারেশন করা অপেক্ষাকৃত কঠিন। এই ধরণের জটিল অপারেশনে অনেক ক্ষেত্রেই অন্যান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বা ক্ষতির সম্ভাবনা থাকে, যেমন দৃষ্টি বা শ্রবণশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া ইত্যাদি। যাই হোক, স্নায়ু বিশেষজ্ঞ বা নিউরোসার্জেনরা চেষ্টা করেন যতটা সম্ভব টিউমার বাদ দেবার।

বর্তমানে উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থাযুক্ত হাসপাতালগুলি জটিল ব্রেন টিউমার অপারেশনের জন্য আধুনিক রোবোটিক সার্জারির সাহায্য নেন। এর মাধ্যমে মস্তিষ্কের গভীরে অবস্থিত টিউমারও কোনো আনুষঙ্গিক ক্ষতি ছাড়াই অপারেশন করা যায়।

ব্রেন টিউমারের অন্যান্য চিকিৎসা

সার্জারি বা অপারেশন ছাড়াও মেটাস্ট্যাটিক বা ক্যান্সার আক্রান্ত ব্রেন টিউমার চিকিৎসার নানারকম পদ্ধতি রয়েছে। যেমন:

কেমোথেরাপি

কেমোথেরাপি হল মূলতঃ একটি ক্যান্সার প্রতিরোধক ওষুধ বা চিকিৎসা ব্যবস্থা, যা শরীরের অভ্যন্তরে অতি দ্রুতহারে বাড়তে থাকা ক্যান্সার সেল বা কোষগুলির বৃদ্ধি রোধ করতে সহায়তা করে এবং তাদের নির্মূল করে। এই ওষুধ সাধারণতঃ অস্বাভাবিক হারে বেড়ে চলা ক্যান্সার সেল বা কোষগুলিকে ধ্বংস করার মাধ্যমে ক্যান্সার প্রতিরোধ করে।

যদিও কেমোথেরাপির বেশ কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে, তা সত্ত্বেও এটি ক্যান্সারের চিকিৎসার ক্ষেত্রে সর্বাধিক প্রচলিত পদ্ধতি। এই চিকিৎসা পদ্ধতি রেডিয়েশন বা ক্যান্সারের অপারেশনের চাইতে আলাদা। কারণ, রেডিয়েশন থেরাপি বা অপারেশন ক্যান্সারে আক্রান্ত কোষগুলিকে তাদের নির্দিষ্ট স্থানে লক্ষ্য করে চিকিৎসা করে। অন্যদিকে, কেমোথেরাপির ওষুধ মেটাস্টেসিস পর্যায়ে থাকা অর্থাৎ দেহের অন্যান্য অংশে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়া ক্যান্সার সেলগুলিকেও ধংস করতে সক্ষম। (আরও বিস্তারিত জানতে পড়ুন: কেমোথেরাপি)

রেডিয়েশন থেরাপি

রেডিয়েশন থেরাপি হল এমন এক ধরণের ক্যান্সার চিকিৎসা যাতে ক্যান্সার সেলগুলি ধংস করার জন্য উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন রশ্মি প্রয়োগ করে টিউমারটি বা টিউমারগুলিকে সঙ্কুচিত কর হয়। এই উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন রশ্মি ক্যান্সার সেলের ডি এন এ ধ্বংস করে শরীরের ক্যান্সার নির্মূল করে। ক্ষতিগ্রস্ত ডি এন এ বিশিষ্ট ক্যান্সার সেলগুলি আর বাড়তে পারেনা, ফলে তা ক্রমশঃ ধ্বংস হয়ে যায়। এরপর , সেই ধ্বংসপ্রাপ্ত কোষগুলি দেহের স্বাভাবিক নিয়মেই দেহ থেকে অপসারিত হয়ে যায়, এবং এইভাবে ক্যান্সার নির্মূল হয়। (আরও বিস্তারিত জানতে পড়ুন: রেডিয়েশন থেরাপি)

ব্র্যাকিথেরাপি

ব্র্যাকিথেরাপি হলো এক ধরণের রেডিয়েশন থেরাপি যাতে চালের দানার আকারের রেডিয়েশন সিড বা কণা টিউমার যেখানে অবস্থান করে, সেই অংশে একটি সরু সূঁচের মাধ্যমে স্থাপন করা হয়। এই প্রণালী আল্ট্রাসাউন্ড ইমেজিং পদ্ধতির সাহায্যে করা হয়। এই রেডিয়েশন কণাগুলি থেকে দীর্ঘ সময় ধরে আক্রান্ত অংশে মৃদু ক্ষমতা সম্পন্ন বিকিরণ হতে থাকে। নির্দিষ্ট সময় পর এই কণাগুলি থেকে বিকিরণ হওয়া বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু বিকিরণ বন্ধ হয়ে গেলেও এই কণাগুলি শরীর থেকে অপসারণ করার প্রয়োজন হয়না।

স্টিরিওট্যাকটিক রেডিও সার্জারি

স্টিরিওট্যাকটিক রেডিও সার্জারি (SRS) হল একধরণের অত্যাধুনিক রেডিও সার্জারি। এই পদ্ধতিতে মাল্টি ডাইমেনশনাল ইমেজিং ব্যবহার করে ক্যান্সার আক্রান্ত টিউমারটির ওপর উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন রেডিয়েশন বীম ফেলা হয়। এই চিকিৎসা পদ্ধতি আশেপাশের কোনো অংশের ক্ষতি না করে বা অন্যান্য সুস্থ স্বাভাবিক কোষের ওপর প্রভাব বিস্তার না করে শুধুমাত্র ক্যানসার আক্রান্ত টিউমারটির ওপর প্রতিক্রিয়া করতে সক্ষম। সর্বাধিক প্ৰচলিত SRS এর প্রণালীগুলি হলো:

  • লিনিয়ার অ্যাকসিলারেটর মেশিন। এর মধ্যে সাইবার নাইফ নামক যন্ত্র সর্বাধিক জনপ্রিয়।
  • গামা নাইফ (বর্তমানে বিশেষ ব্যবহার হয় না)
  • প্রোটন বীম থেরাপি। এটি একটি অত্যাধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি এবং কেবলমাত্র বিশেষ বিশেষ হাসপাতালে এটি উপলব্ধ।

ইমিউনোথেরাপি

ইমিউনথেরাপি, বা বায়োলজিক্যাল থেরাপি হল এক উন্নত ধরণের ক্যান্সারের চিকিৎসা। এই পদ্ধতিতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার বৃদ্ধি ঘটিয়ে শরীরকে ক্যান্সারের সাথে লড়ার উপযোগী করে তোলা হয়, যাতে তা নিজেই ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে। ইমিউনথেরাপিতে দেহে তৈরী হওয়া নিজস্ব উপাদান অথবা গবেষণাগারে তৈরী উপাদান ব্যবহার করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলার চেষ্টা করা হয়। (আরও বিস্তারিত জানতে পড়ুন: ইমিউনোথেরাপি)

সহায়তা প্রয়োজন?

যোগাযোগ করুন

ধন্যবাদ!

যোগাযোগ করার জন্য ধন্যবাদ! আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনার সাথে যোগাযোগ করব।

দ্রুত উত্তরের জন্য, আপনি ওয়েবসাইটের নীচে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট বোতামটি ব্যবহার করে আমাদের সাথে চ্যাট করতে পারেন।

টেলিগ্রামে যোগাযোগ করুন